জেলায় বন্যা কবলিত এলাকাগুলিতে গিয়ে প্রশাসনিকভাবে বোর্ড নামিয়ে জলাশয় থেকে মানুষজনদের উদ্ধার করে, নিজ তহবিলে একাধিক জায়গায় ত্রাণ শিবের খুলেছেন জেলা সভাপতি গৌতম দাস।

0
361

বাবাই সূত্রধর, গঙ্গারামপুর,দক্ষিণ দিনাজপুর; ২৯ সেপ্টেম্বর; বন্যা কবলিত সমস্ত এলাকাগুলিতে দিন- রাত ঘুরে ঘুরে মানুষজনদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূলের সভাপতি গৌতম দাস। প্রশাসনিক সহযোগিতায় যেন সমস্যা পড়া মানুষজন সুবিধা গুলি পান, সেইসঙ্গে বন্যা কবলিত মানুষদের জন্য ত্রাণ শিবির খুলে খাবার দেওয়ার ব্যবস্থা করলেন দলীয় কর্মী সমর্থকদের দিয়ে। দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস। তিনি জানালেন, বিপদের সময়ে মানুষজনের পাশে থেকে কাজ করে যাওয়াই হলো আমাদের লক্ষ্য যা আমি সব সময় করে যাব। গৌতম বাবুর এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন জেলা বাসি।
বিগত কয়েকদিনের এক টানা বৃষ্টিতে পুনর্ভবা নদীর জল চরম বিপদজনক ভাবে বয়ে চলায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে গঙ্গারামপুর শহর, ব্লকের বিভিন্ন জায়গার পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন ব্লকেও। বেশ কয়েকটি নদী বাদ দিয়ে জল চুয়ানোর ঘটনায় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। জেলার তপন, গঙ্গারামপুরের সুকদেবপুর, কাটাবাড়ি, শহর এলাকার ইন্দ্র নারায়নপুর কলোনী, বোরডাঙ্গী, শিববাড়ি এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে, যাদববাটি, তপনের রামপাড়া চাঁচড়া, নওগাঁ সহ বিভিন্ন বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সহযোগিতা করে গিয়েছেন গঙ্গারামপুরের বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস।তিনি ওই সমস্ত এলাকায় রাতদিন এক করে দিয়ে ঘুরে বেরিয়ে মানুষজনদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের কি অসুবিধা রয়েছে সে বিষয়ে জানতে যান। তিনি বাসিন্দাদের বোর্ড নামিয়ে উদ্ধার করেন বিভিন্ন জায়গায় প্রশাসনিকভাবে।
এদিন গঙ্গারামপুর এর বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস নিজের উদ্যোগে বহু জায়গায় ত্রাণ শিবির খোলেন। সেখানে আশ্রয় নেওয়া এলাকাবাসীদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করেন তিনি।

গঙ্গারামপুর এর বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস জানিয়েছেন, বিপদের সময় মানুষজনদের পাশে আমরাই রয়েছি তা আরো একবার প্রমান হলো। বিভিন্ন জায়গায় দলীয় কর্মীদের তাদের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমি নিজেও বহু জায়গায় ঘুরে তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে। নিজের উদ্যোগে বহু জায়গায় ত্রাণ শিবির খোলার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যতদিন এই সমস্যা চলছে ততদিন তিনি এমন ত্রাণশিবির খোলা রাখবেন বলে জানিয়েছেন।
গৌতম বাবুর এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সকলেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here