বন্যা পরিস্থিতি দিনাজপুরের নদী গুলিতে, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে স্থানান্তর করছেন প্রশাসন।

0
18

নিজস্ব সংবাদদাতা, দক্ষিণ দিনাজপুর ২৭ সেপ্টেম্বর– একটানা বৃষ্টিতে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রধান তিনটি নদী বন্যার রূপ নিয়েছে। আত্রেয়ী, পুর্নভবা ও টাঙ্গন নদীতে জলস্ফীতির জেরে গঙ্গারামপুর শহরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া পুনর্ভবা নদীর জল বৃদ্ধির ফলে শহরের বড় বাজার, ৯ নম্বর ওয়ার্ড, বোড়ডাংগী, মহারাজপুর এলাকার নিচু অংশগুলিতে জল ঢুকে পড়েছে। গঙ্গারামপুর শহরের বড় বাজার এলাকা ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের গংগারামপুর – তপন রাজ্য সড়কের উপর দিয়ে পুনর্ভবা নদীর জল বয়ে যাচ্ছে।
বালুরঘাট, কুমারগঞ্জ বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। জেলার সদর শহর বালুরঘাটের আত্রেয়ী নদীর জলে নদী সংলগ্ন নিচু এলাকা বেলাইন, কল্যানী কলোনী, কংগ্রেস পাড়া, ঘাট কলোনী, সহ বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ফলে বাসিন্দারা চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, টানা বৃষ্টিতেই নদীর জল বাড়ার ফলে গতকাল রাত থেকেই শহরের পুর এলাকায় জল ঢুকতে শুর করেছে। যার ফলে এলাকার বাসিন্দাদের দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হয়েছে।
যদিও জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে সমগ্র পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হয়েছে।
যদিও বিপদের স্তর অতিক্রম করেছে পুনর্ভবা নদীর জল। পরিস্থিতির উপর নজর রেখেই ত্রাণ শিবির এবং ক্ষতিগ্রস্ত বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে স্থানান্তরিত করার কাজ শুরু হয়েছে। তিনটি ব্লকে ৬ টি শিবির করে মোট ২৬৭ জন বাসিন্দাকে রাখার ব্যবস্থা হয়েছে। কুমারগঞ্জ ব্লকে ৩ টি ত্রাণ শিবির রয়েছেন ১২৮ জন। বালুরঘাটে ২ টি ত্রাণ শিবিরে রয়েছেন ৯ জন এবং তপন ব্লকে ১টি ত্রাণ শিবিরে ৬০ জনকে রাখার ব্যবস্থা হয়েছে।
যদিও বন্যার জলে কুশমণ্ডি ব্লকের করঞ্জি পঞ্চায়েতের টাঙ্গান নদীর বাঁধের ছোট্ট অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রধান উদ্যোগ নিয়ে বাঁধ মেরামতের কাজ করেছেন। যেকোনো রকম পরিস্থিতির জন্য সিভিল ডিফেন্স, স্বেচ্ছাসেবক সহ ডুবুড়িদের পাশাপাশি স্পিড বোট প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here