১০০ দিনের কাজ করার পর সুপারভাইজার সেই কাজের টাকা শ্রমিকদের না দিয়ে নিজের স্ত্রী সহ আত্মীয়-স্বজনদের একাউন্টে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে

0
79

বাবাই সূত্রধর, গঙ্গারামপুর ২৮ আগস্ট দক্ষিণ দিনাজপুর:- ১০০ দিনের কাজ করার পর সুপারভাইজার সেই কাজের টাকা শ্রমিকদের না দিয়ে নিজের স্ত্রী সহ আত্মীয়-স্বজনদের একাউন্টে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের হরিরামপুর ব্লকের বৈরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতের রায় নগর এলাকায়। সুপারভাইজার ও প্রধানের বিরুদ্ধে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী থেকে শুরু করে বুথের তৃণমূল নেতাদের পাশাপাশি বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারাও। উপপ্রধান বিষয়টি খতিয়ে দেখার কথা বললেও প্রশাসনের তরফে কড়া ব্যবস্থা নেবার আশ্বাস দিয়েছেন। অভিযুক্ত অবশ্য নিজের দোষ ঢাকার জন্য যারা এমন অভিযোগ করেছেন বলেন তারা বিজেপি দল করে। আমার কাছে অন্যায় ভাবে টাকা দাবি করায় তা না পেয়েই এমন অভিযোগ করেছে বলে তারা পাল্টা তিনি অভিযোগ করেছেন। দলে কি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই এমন ঘটনা, বিষয়টি নিয়ে শোরগোল পড়েছে এলাকাজুড়ে।
হরিরামপুর ব্লকের বৈরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতটি বিগত পঞ্চায়েত ভোটে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ১৬টি আসনের মধ্যে ১১টি দখল করে, সিপিআইএম ১টি ও বিজেপি ৪টি আসনে জয়লাভ করে । প্রধান হন তৃণমূলের রোহিনী দেব শর্মা ও উপপ্রধান হন আব্দুর রাজ্জাক। বৈরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতের রায় নগর এলাকায় বাসিন্দাদের অভিযোগ, রায় নগর এলাকায় পুকুর ও খড়ি সংস্কার করার জন্য কয়েক লক্ষ টাকার কাজ করেছে এলাকার জব কার্ড ধারী গরীব মানুষেরা। প্রায় কয়েক মাস আগে সেই কাজ করলেও গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান আব্দুল রাজ্জাকের কাছের লোক বলে পরিচিত রায়নগরের ঠিকাদার তথা সুপারভাইজার নুরুল ইসলামের মাধ্যমে তারা কাজ করেছিলেন। এলাকাবাসীর অভিযোগ ,বার বার প্রধান, উপ প্রধানের কাছে গিয়ে জব কার্ডের মাধ্যমে টাকা চাইতে গেলে তারা তাদের জানিয়ে দেন টাকা সময় হলে পেয়ে যাবেন। এর পরেই কয়েক মাস পার হবার পরে স্থানীয় বাসিন্দারা রায় নগর এলাকায় তৃণমূলের বুথ সভাপতি জামালুদ্দিন আহমেদের কাছে যান। তিনি খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন যে যারা মাটি কাটার কাজের টাকা পেয়েছেন ঠিকাদার তথা সুপারভাইজার নুরুল ইসলাম। অভিযোগ, সে কাজের টাকা নজরুলের স্ত্রী, তার ভাই যারা বাইরে রয়েছেন, রয়েছে নিজের আত্মীয়-স্বজন।
কাজ করে টাকা না পাওয়া ওই এলাকার শ্রমিক অজয় আলী, সাত্তার হোসেন, দৌবকি রাজবংশীদের অভিযোগ, সুপারভাইজার নুরুল আমাদের টাকা না দিয়ে আত্মীয়-স্বজনদের একাউন্টে নিয়েছে। সব জায়গায় অভিযোগ করেছি অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবী জানাই।
রায় নগর বুথের তৃণমূল সভাপতি জামালুদ্দিন আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, আর টি আই করে আমি জানতে পারি যে ওই কাজের কাদের নামে টাকা দেওয়া হয়েছে। যারা কাজ না করে সরকারি টাকা আত্মসাৎ করেছে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নিক সেটা চাই।
হরিরামপুরের বিধায়ক রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, এটা তৃণমূলের পক্ষেই সম্ভব। তাই প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নেই সেটা চাই।
বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার জানিয়েছেন, এই সরকারের লোকজন এমন কাজে বেশ তৎপর। তাই যথাস্থানে তা জানানো হবে।
বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস জানিয়েছেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন এমন ঘটনা মেনে নেওয়া যাবে না।
দলীয় বিজেপি বানিয়ে দেওয়া হচ্ছে। জেলাতে ফিরেই এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। কেন এমনটা হল তা খোঁজ নেওয়া হবে।
হরিরামপুর ব্লকের ভিডিও শ্রীমান ব্যানার্জি জানিয়েছেন, বিষয়টি শুনলাম। খোঁজ নিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
অভিযুক্ত ঠিকাদার তথা সুপারভাইজার নুরুল ইসলাম জানিয়েছেন, ওরা সকলেই বিজেপি দল করে। আমার কাছে অন্যায় ভাবে ওই এলাকার বাসিন্দারা টাকা দাবি করায় তা না পেয়েই এমন অভিযোগ করেছে বলে তিনি পাল্টা অভিযোগ করেছেন।
দোলে কি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে এমন ঘটনা, বিষয়টি নিয়ে শোরগোল পড়েছে এলাকাজুড়ে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here